হরতাল-অবরোধ ও নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা....
স্থগিত হতে পারে ৪৫তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা

স্থগিত হতে পারে ৪৫তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা। সবার কথা বিবেচনা করে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। দ্রুত এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে পারে।

শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে পিএসসির একজন সদস্য গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তার ভাষ্য, সবার কথা বিবেচনা করে পরীক্ষা স্থগিত করা হতে পারে।

একই কথা জানিয়েছেন পিএসসির একজন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক। নামপ্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, অনেক প্রার্থীর আপত্তি। অনেক প্রার্থী আবার চাইছে পরীক্ষা হোক। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ-আলোচনা চলছে। যতটুকু জেনেছি পরীক্ষা স্থগিত করা হতে পারে। তবে, আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না আসা পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না।

আগামী ২৭ নভেম্বর থেকে ৪৫তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। তবে, হরতাল-অবরোধ ও নির্বাচনী ডামাডোলের মধ্যে পরীক্ষাকেন্দ্রে যাতায়াত নিয়ে নিরাপত্তা শঙ্কার কথা জানিয়ে আসছেন অনেকে।

গত ১৯ নভেম্বর প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা নির্বাচন কমিশনে গিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বরাবর পরীক্ষা পেছানোর দাবিতে স্মারকলিপি দেন। একই দাবিতে পিএসসিতেও লিখিত আবেদন করেন। মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) তারা আবারও সিইসিকে লিখিত আবেদন দেন।

আবেদনে প্রার্থীরা উল্লেখ করেন, তফসিল ঘোষণার পর চলমান হরতাল-অবরোধ আরও ব্যাপক ও মারাত্মক আকার ধারণ করায় পরীক্ষার পরিবেশ ও যাতায়াতে নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে পর্যবেক্ষণ ও পিএসসির সঙ্গে আলোচনা করে স্বাভাবিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে পরীক্ষার আয়োজন করার অনুরোধ জানান পরীক্ষার্থীরা।

এদিকে, পরীক্ষা পেছাতে প্রার্থীদের সপ্তাহব্যাপী দৌড়ঝাঁপে পাত্তা না দিয়ে বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় লিখিত পরীক্ষার পূর্ণাঙ্গ সময়সূচি ও আসনবিন্যাস প্রকাশ করে পিএসসি। তাতে ২৭ নভেম্বরই পরীক্ষা শুরু হবে বলে জানানো হয়।

এ নিয়ে ক্ষোভ জানান পরীক্ষার্থীরা। তারা অভিযোগ করেন, পিএসসির অনড় অবস্থানের কারণে বিএনপি-জামায়াতের ডাকা সপ্তম দফা অবরোধের দ্বিতীয় দিনে লিখিত পরীক্ষায় বসতে হচ্ছে তাদের। উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যেই ১১ দিন কেন্দ্রে গিয়ে পরীক্ষা দিতে হবে।

তবে প্রার্থীদের নিরাপত্তা শঙ্কার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে অবশেষে পরীক্ষা পেছানোর সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে পিএসসি।

গত ৬ জুন ৪৫তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এতে মোট ১২ হাজার ৭৮৯ জন ৪৫তম বিসিএসের প্রিলিতে উত্তীর্ণ হয়েছেন। ৪৫তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার রুটিন অনুযায়ী টেকনিক্যাল ক্যাডার ও উভয় ক্যাডারের বাংলা প্রথমপত্র পরীক্ষা হবে ২৭ নভেম্বর। সাধারণ ক্যাডার ও উভয় ক্যাডারের প্রার্থীদের বাংলা দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষা হবে ২৮ নভেম্বর।

৪৫তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা চলবে আগামী ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ৪৫তম বিসিএসের মাধ্যমে মোট ২ হাজার ৩০৯ জন ক্যাডার নেওয়া হবে। নন-ক্যাডারে নেওয়া হবে ১ হাজার ২২ জন।