রাবিতে জানাজা শেষে বাড়ির পথে হিমেলের মরদেহ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ট্রাকে পিষ্ট হয়ে নিহত শিক্ষার্থী হিমেলের জানাজা ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে এই জানাজা সম্পন্ন হয়।

জানাজা পূর্ববর্তী সময়ে উপাচার্য নিহতের পরিবারকে আজকের দিনের মধ্যে ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আশ্বাস দেন।

জানাজা শেষে হিমেলের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছে নাটোরে। সেখানে তার দাফন সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে।

এর আগে এদিন সকাল সাড়ে নয়টার দিকে নিহত হিমেলর লাশ চারুকলায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এ সময় হিমেলের বন্ধুরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

বেলা দশটার দিকে সাদা পিকআপে করে তার লাশ নিয়ে আসা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে। সেখানে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাত সাড়ে আটটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ হবিবুর রহমান হলের সামনের রাস্তায় ট্রাকচাপায় হিমেল নিহত হন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাফিক্স ডিজাইন, ক্রাফট ও শিল্পকলার ইতিহাস বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

হিমেল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটের দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্বেও ছিলেন।

হিমেলের মৃত্যুর ঘটনায় পুরো ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। এ সময় তারা ৫টি ট্রাকে আগুন দেন এবং মধ্যে রাত পর্যন্ত উপাচার্য ভবন ঘেরাও করে রাখেন। ছিন্নভিন্ন হয়ে পুরো ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ ও ভাঙচুর চালান। ঢাকা রাজশাহী মহাসড়কও অবরোধ করে রাখেন তারা।

এ ঘটনায় শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে মঙ্গলবার রাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর লিয়াকত আলীকে প্রত্যাহার করেন উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার।