খাদ্যশস্য উৎপাদন কমার আশঙ্কায় রাশিয়া

বিশ্বের শীর্ষ গম রফতানিকারক রাশিয়া। আন্তর্জাতিক বাজারে খাদ্যপণ্যের দাম বাড়তে থাকায় উদ্বেগের মধ্যে রয়েছে দেশটি। এরই মধ্যে মিলেছে দেশটির খাদ্যশস্য উৎপাদন হ্রাসের পূর্বাভাস। রুশ কৃষি মন্ত্রণালয় সম্প্রতি উৎপাদন পূর্বাভাস কমিয়ে আনে। খবর রয়টার্স।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, শীর্ষ রফতানিকারক দেশটিতে উৎপাদন কমে গেলে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে আন্তর্জাতিক বাজারে। আকাশচুম্বী দাম আরো বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এতে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে পড়বে নিম্ন আয়ের দেশগুলো।

রাশিয়ার কৃষি মন্ত্রণালয়ের পূর্বাভাস বলছে, ২০২১-২২ বিপণন মৌসুমে দেশটিতে ১২ কোটি ৩০ লাখ টন খাদ্যশস্য উৎপাদন হতে পারে। এর আগে ১২ কোটি ৭০ লাখ টন খাদ্যশস্য উৎপাদনের পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল। সাম্প্রতিক শুষ্ক আবহাওয়া উৎপাদনে প্রভাব ফেলেছে। মূলত এ কারণেই পূর্বাভাস কমানো হয়েছে।

মন্ত্রণালয় জানায়, ২০২১-২২ মৌসুমে রাশিয়ায় ৭ কোটি ৫০ লাখ টনের চেয়ে কিছুটা বেশি গম উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে। এটি গত বছর উৎপাদিত ৮ কোটি ৫০ লাখ টনের তুলনায় অনেক কম।

তবে মার্কিন কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) ফরেন এগ্রিকালচারাল সার্ভিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী গমের উৎপাদন আরো কম। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, ২০২১-২২ বিপণন মৌসুমে রাশিয়ায় ৭ কোটি ২৫ লাখ টন গম উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে। এ সময় রফতানিও গত মৌসুমের ৩ কোটি ৮৫ লাখ থেকে কমে ৩ কোটি ৫০ লাখ টনে নামতে পারে।

ইউএসডিএর প্রক্ষেপণ বলছে, এ বছর রাশিয়াকে হটিয়ে গম রফতানিতে শীর্ষে উঠে আসতে পারে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। অঞ্চলটির রফতানি দাঁড়াবে ৩ কোটি ৫৫ লাখ টনে।